Disclosure: আমাদের কন্টেন্টগুলো পাঠক সমর্থিত। যদি আপনি আমাদের কোন লিংকে ক্লিক করে কিছু কিনেন, এতে আমরা কমিশন পেতে পারি। এতে আপনার অতিরিক্ত কোন খরচ হবেনা, বরং আমাদের উৎস থেকে কিনলে আপনি ডিসকাউন্ট অফার পাবেন। দেখুন কিভাবে রিভিউজিঙ্গেল অর্থের যোগান দেয়, কেন এটি দরকার এবং আপনি কিভাবে আমাদের সাহায্য করবেন।

পেপারফ্লাই কুরিয়ার রিভিউ ২০২২ – Paperfly Courier ব্যবহার করা থেকে দূরে থাকুন!

বর্তমান সময়ে অনলাইন ব্যবসায় অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। অনলাইন ব্যবসায়ের পাশাপাশি চাহিদা বাড়ছে কুরিয়ার সার্ভিসগুলোর। বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক কুরিয়ার সার্ভিস কোম্পানি দেখা যায়। যেমন – REDX, Paperfly কুরিয়ার, সুন্দরবন কুরিয়ার ইত্যাদি।

এই পেপারফ্লাই কুরিয়ার রিভিউ আর্টিক্যালে আমি Paperfly Courier সম্পর্কে প্রমাণসহ কিছু বাস্তব অভিজ্ঞতা শেয়ার করব যা এদের মুখোশ উন্মোচন করবে বলে আমার বিশ্বাস। আশা করছি ্একটু ধৈর্য সহকারে সময় নিয়ে হলেও পড়বেন।

আমার সম্পর্কে একটু বলতে চাই –

আমি আর এস টুটুল একজন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা। আমি দারাজে টি শার্ট বিক্রি করি। তখন আমার ব্যবসায়ের নাম ছিল QP Products যা বর্তমানে Fabrilure Fashion নামে পরিচিত। যেহেতু আমি নতুন ব্যবসায় শুরু করেছিলাম, তাই আমার কুরিয়ার সম্পর্কে খুব বেশি ধারণাও ছিল না।

আমার দারাজের বাহিরে ব্যবসায় করার প্লান ছিল বলেই আমি কুরিয়ারগুলো সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হয়ে উঠি। আমি অনেক কুরিয়ার অফিসেই গিয়ে যোগাযোগ করেছি তাদের সার্ভিস চার্জসহ নানা বিষয় জানতে। আমি পেকেজ ফি, কুরিয়ার চার্জ এবং ইত্যাদি বিষয়গুলো জেনে খাতায় লিখতাম।

যাই হোক, আমি দারাজের বাহিরেও কিছু টি শার্টের অর্ডার পাই।  তাদের মধ্যে একটি অর্ডার ছিল ময়মনসিংহ মিচকীপাড়ার এক কাস্টমারের। যেহেতু স্বাধীনতা দিবসের টি শার্ট ছিল, সেগুলো ২৫ তারিখের মধ্যেই পাঠানোটা জরুরী ছিল। এমন অবস্থায় দ্রুত মাল পৌছাবে এমন একটি কুরিয়ার সার্ভিস দরকার ছিল।

Fabrilure T shirt order

পেপারফ্লাই কুরিয়ার সম্পর্কে যেভাবে জানলাম:

 সেই ক্রেতা আমাকে জানালেন যে, উনাদের এলাকায় পেপারফ্লাই খুবই সচল। এটাই ছিল পেপারফ্লাই সম্পর্কে আমার প্রথম জানা। আমি দ্রত তাদের অফিস খুজে বের করলাম। তাদের অফিস ছিল নারায়নগঞ্জ চাষাড়া জামতলায়। যেহেতু আমি নারায়ণঞ্জ থাকি, আমার সেখানেই যেতে হয়েছিল।

পেপারফ্লাই কুরিয়ার এপস এ অর্ডার জেনেরেট করলাম:

আমি সেখানে গিয়ে তাদের সাথে যোগাযোগ করলাম। তারা আমাকে এপস ডাউনলোড করিয়ে নিজেরাই সেটা সেট আপ করে দিল। সথ্যি বলতে গেলে তাদের আচরণ ছিল খুবই ভাল। এরিয়া সুপারভাইজার শুভ ভাই শুরুতেই আমাকে সবকিছু বলে দিলেন। এপস ইন্সটল করার পর অর্ডার জেনেরেট করতে হয়। 

অর্ডার জেনেরেট করার সময় কিচু তথ্য দিতে হয়। সেগুলোর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফিল্ডগুলো হচ্ছে –

  • পন্য নাম
  • পন্য ধরণ
  • পন্য সংখ্যা
  • COD পরিমাণ ইথ্যাদি।

তাদের কথা মতোই আমি সবকিছু ফিলাপ করি। সেখানে এরকম একটাও অপশন ছিলনা যেটা আমি নিজের ইচ্ছেমতো ফিলাপ করি। যখনই আমি Product Quantity ফিল্ডটি ফিলাপ করতে যাই, আমি বারবার জিজ্ঞেস করি, এটাকি ভিতরে কয়টা টিশার্ট আছে সেটার  পরিমান, নাকি পেকেজের পরিমান। ভিতরে যতগুলো টি শার্টই থাকুক, একটা পেকেজে ডেলিভারি দেয়ার মানেই তো একটার ডেলিভারি চার্চ কাটা হবে তাই নয় কি? ভিতরে ৮টা টি শার্ট ছিল কিন্তু পেকেজ ছিল একটা, অর্ডারও তৈরি করা হয়েছিল একটাই। 

যাইহোক তাদের কথামতো Product Quantity ফিল্ডে তাদের কথামতো আমি ৮ লিখলাম। যদিও আমি বারবার তাদেরকে বলছিল পেকেজ তো একটা, এখানে কি ১ হওয়ার কথা নয়? তারা বলল এখানেতো প্রোডাক্ট কোয়ান্টিটি চাইছে। পেকেজের না। অতএব তাদের কথামতো সবকিছু করেই অর্ডার জেনেরেট করলাম। আমি যেই অর্ডারটি জেনেরেট করি সেটার নাম্বার হচ্ছে – S-230322-10258-B3-F1, অর্ডার তারিখ – Mar 23, 2022 06:37 pm.

পেপারফ্লাই জামতলা হাবের সুপারভাইজার শুভ ভাই খুবই ভাল আচরণ করেন। সত্যি বলতে গেলে আমি খুবই সন্তুষ্ট ছিলাম। যেহেতু ৮টি টি শার্ট যার ওজন ০.৫-১কেজির মধ্যে ডেলিভারি চার্জ ঢাকার বাহিরে হওয়ায় ৯০-১২০ টাকার মধ্যেই হবে বলে আমাকে জানান। আমি টি শার্টগুলো নষ্ট যেন না হয় সে জন্য তাদের কাছ থেকে পেপারফ্লাই পেকেজও কিনে সেটা দিয়ে পেকেজ করে মালটি সেখানে পাঠানোর জন্য সাবমিট করলাম।

বর্তমানে নারায়নগঞ্জ জামতলা হাবের সুপারভাইজার শুভ ভাইয়ের সাথে যোগযোগ করতে পারেন। আমার বিশ্বাস উনি আমার জন্য যথেষ্ট ট্রাই করেছেন ব্যাপারটি সমাধান করার জন্য।

সমস্যার উৎপত্তি যেখান থেকে শুরু:

সবকিছু মিলিয়ে আশাবাদি ছিলাম যে সবকিছু ঠিকঠাকই হবে। ২৬ তরিখে মালটি পৌছে গেল। ২৮ তারিখে যখন তাদের এপস এ আপডেট দেখলাম তখনই সব আশায় ভাটা পড়ল। সেখানে আমার কাছ থেকে একটা পন্য শিপিংয়ের পরিবর্তে ৮টার শিপিং চার্জ কেটেছে। যেখানে শিপিং চার্জ হওয়ার কথা ৯০ + ১৪ = ১০৪ টাকা অথবা ১২০+১৪ = ১৩৪। সেখানে তারা ডেলিভারি চার্জ ধরেছে – ৯৬০+১৪ = ৯৭৪ টাকা। কীভাবে? ৮ X ১২০ = ৯৬০ + ১৪ = ৯৭৪। কী আজব! তাইনা?

Invoice 06-June-2022 (ডাউনলোড তারিখ)

উপরের পিচকারটিতে দেখতেই পারছেন, এখনও বাকি টাকাটা পে হয়নি। তারা বাকি ৪২৬ টাকাও পে করেনি। অথচ আজকে ৬ জুন ২০২২ইং। প্রায় দুই মাস।

সমস্যা সমাধানের পেপার ফ্লাই কাস্টমার সাপোর্ট এ কল দিলাম:

যাইহোক আমি সেটা চেক করে সাথে সাথে তাদের হেল্পলাইনে কল করলাম। তাদের কাস্টমার সার্ভিস ডিপার্টমেন্ট থেকে বলা হল এটা ঠিক করে দিবে তারা। এভাবে কয়েকদিন চলে গেল গেল। একসপ্তাহ পর আবার যোগাযোগ করলাম। । এদের একটা মুখস্ত ডায়লগ আছে। আর সেটা হল –

আমরা বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দিয়েছি। আশা করছি দ্রুতই আপনার সাথে যোগাযোগ করে বিষয়টি ঠিক করে দেয়া হবে। আপনি আপনার টাকা পেয়ে যাবেন। চিন্তা করবেন না।” 

সুপারভাইজারের সাথে যোগাযোগ করার পর পেপারফ্লাইয়ে ইমেইল করলাম:

এই সমস্যাটার সমাধানের জন্য আমি যোগযোগ করেছিলাম নারায়নগঞ্জ হাবের সুপারভাইজার শুভ ভাইয়ের সাথে। ওনার সাথে যোগাযোগ করে আমি জানতে পারলাম পেপারফ্লাইয়ের অফিসিয়াল ইমেইলে যোগাযোগ করলে ঠিক হয়ে যাবে । তার কথামতো আমি তাদেরকে একটা ইমেইল করলাম।

Email to Paperfly

অত:পর তারা আমাকে উত্তর দিল। জিজ্ঞেস করল কত কেজি আমি ইনপুট করেছিলাম। আমি বলেছিলাম সম্ভবত ০.৫। সত্যি বলতে গেলে, আমাকে শুভ ভাইই বলেছিলেন আমি যেন ০.৫ দেই। কারন টিশার্টগুলোর ওজন আধা কেজির মতোই হবে।  একটু বেশি হলেও ০.৫ কেজি দেয়া যায়। এক কেজির খুব বেশি কাছে না গেলেই হল। যেহেতু আমি পুরোই নতুন, তাদের কথা মতোই সব কিছু করেছিলাম।

Second email to paperfly

অত:পর পাচদিন চলে গেল। পাচদিনে আমি কয়েকবার যোগাযোগ করেছি তাদের হেল্প লাইন এবং সুপারভাইজার শুভ ভাইয়ের সাথে। কিন্তু কোন ফলাফল পাইনি। এমনকি তাদের ইমেইল থেকেও কোন উত্তর আসেনি। অত:পর আমি আরেকটি ইমেইল করলাম।

Email to paperfly again

এই ইমেইলটিরও কোন উত্তর আসল না। অত: পর আর ২ বার কথা বললাম কাস্টমার হেল্পলাইনে। ঠিক আগের মুখস্ত উত্তরটাই শুনলাম। তারপর যোযোগ করলাম শুভ ভাইয়ের সাথে। উনি আশ্বস্ত করলেন উনিও  ইমেইল করে দিবেন। ২ দিন পর আমি নারায়নগঞ্জ হাবে গেলাম এবং সেখানে গিয়ে শুভ ভাইয়ের হোয়াটস্যাপে স্ক্রিনশট শেয়ার দিলাম সেই ইনভয়েস আর অর্ডার ডিটেইলসের। উনি আমার সামনেই একটা ইমেইল করলেন এবং সাথে সাথে আমাকেও বললেন একটা ইমেইল করে তার নাম মেনশন করে বলতে। আমি সাথে সাথেই সেখানে থাকাবস্থায় সেটা করলাম।

এটারও কোন উত্তর আসেনি কোন দিন। আজকে প্রায় ২ মাস পূ্র্ণ হল এই ইমেইল পাঠিয়েছিলাম।

সব রকমের চেষ্টাই ব্যর্থ হয়েছে –

এর পর থেকে এই বিষয়টি নিয়ে যে কতবার তাদের হেল্পলাইনে যোগাযোগ করেছি তার কোন হিসাব নেই। আমার মনে হয় ১৪০০ টাকা উদ্ধার করতে গিয়ে কয়েকশ টাকার কথা তাদের হেল্পলাইনে কথা বলেই খরচ করে ফেলেছি। আর তাদের সুপারভাইজারকে কতবার নক করেছি তার কোন নির্ধারিত সংখ্যা আমার জানা নাই। শুভ ভাইয়ের প্রতি আমার রাগ নাই কোন। উনারা হয়তো ওখানে জব করেন। এতটুকুই। আমি জানিনা উনি উনার দিক থেকে কতটুকু চেষ্টা করেছেন। তার সাথে হোয়াটস্যাপে কয়েকবার কথা বলেছি। অনেকবার মেসেজও করেছি। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমার। কোন সমাধান আজও পাইনি।

সবশেষে আমি তাকে একটি মেসেজ করে বলেছিলাম, আমি আমার এই অভিজ্ঞতাটা সারা বাংলার মানুষের কাছে তুলে ধরব। তার একটি ছোট আলোকপাত এই ব্লগ আর্টিকেলটি মাত্র। একটি ইউটিউব ভিডিওর কাজও চলছে। 

তাকে কতবার মেসেজ করেছি, তার একটি ছোট হিস্টরি নিচে তুলে ধরলাম।

মেসেজ ছাড়াও কতবার যে মোবইলে কথা বলেছি তা না ই বলি। 

এদের কথা কাজ কোন কিছুরই মিল নাই। আমার মতো যে কত কাস্টমারের টাকা এরা মেরে দিছে তার কোন নির্দিষ্ট কোন পরিমান আমার জানা নেই। তবে ওনাদের প্লে স্টোরে এপস এ গেলে বুঝতে পারা যায় এরা যে কত বড় ফ্রড কোম্পানি।

নিচে আমি আমারমেতো ভুক্তভোগি মানুষদের কিছু রিভিউজ বা মতামত  তুলে ধরলাম। 

পেপারফ্লাই সম্পর্কে আমার তিক্ত অভিজ্ঞতায় আমি যা শিখেছি –

অলরেডি ২ মাস চলে গেছে।  এই আর্টিকেলটি লিখতে গিয়ে আমি পেপারফ্লাই সম্পর্কে আর অনেক কিছু জেনেছি। অন্য কাস্টমারদের মতামত আর আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি পেপারফ্লাই কুরিয়ার  সম্পর্কে যেই জিনিসগুলো জেনেছি বা বুঝতে পেরেছি সেগুলো হল –

  • পেপারফ্লাই একটা লাইসেন্সধারী  ফ্রড কোম্পানি।
  • এদের ম্যানেজম্যান্ট টিম হয়তো চোর অথবা অসাধু যেই কারনে তারা কোন সমস্যার সমাধান ঠিকঠাক করেনা বা করতে চায় না।
  • কাস্টমার সারভিস জঘন্য খারাপ। এরা প্রতিবারই মুখস্ত ডায়লগ মারে।
  • COD এর জন্য পেপারফ্লাই উপুক্ত নয়।
  • পেপারফ্লাই কুরিয়ার এপস ভালমানের নয়। লোড সময় বেশি নেয়। হুদ্দাই অনেক সময় বন্ধ হয়ে যায়।
  • এদের কথা কাজের কোন মিল নেই।

সবশেষে একটা কথা, আমরা এমন এক দুর্নীতি প্রবণ দেশে থাকি, যেখানে বড় বড় দুর্নীতিই চোখে পড়েনা। সেখানে এরকম ছোট ছোট চুরি বা দুর্নীতিগুলো কিভাবে চোখে পড়বে? আজকে বাংলাদেশে যদি সুবিচার থাকত, আমার মতো ভুক্তভোগিরা অবশ্যই সঠিক সমাধান পেত।  

আমি কখনোই চাইনা, আমার মতো কেউ এরকম ভোগান্তিতে পড়ুুক। আমার এই পোস্টটি পড়ে যদি কোন ব্যক্তি এই কুরিয়ার থেকে বেচে থাকতে পারে এতেই আমি খুশি। আমি ১৩০০+ টাকা বাশ খেয়েছি। কেউ যেন এরকম বাশ না খায়। সবার এক সাথে এর প্রতিবাদ করলেই হয়তো কোন একদিন এর সমাধান আমরা পাব। 

এতক্ষন সময় নিয়ে আর্টিকেলটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধণ্যবাদ। পারলে একটা কমেন্ট করে আমাকে উৎসাহীত করবেন। 

পেপারফ্লাই কুরিয়ার সম্পর্কে আপনার মতামত কি?? 

আপনি পেপারফ্লাই ব্যবহার করে সন্তুষ্ট নাকি অসন্তুষ্ট? প্লিজ নিচে পেপারফ্লাই সম্পর্কে একটি মতামত দিন!

আপনার আপনার মতামত শুনতে চাই. 

ধন্যবাদ!

ইউজারদের মতামত
What people say... Leave your rating
Сортировать:

Be the first to leave a review.

User Avatar User Avatar
Verified
/ 5
{{{ review.rating_title }}}
{{{review.rating_comment | nl2br}}}

На этот отзыв еще нет ответов.

Avatar
Show more
Show more
{{ pageNumber+1 }}
Leave your rating

RABIUS SANY
RABIUS SANY
রবিউস সানি টুটুল হচ্ছেন “স্মার্টেস্টল্যান্সার ডিজিটাল এবং ই-কমার্স মার্কেটিং এজেন্সি”র প্রতিষ্ঠাতা। তিনি একজন নিবেদিত ওয়ার্ডপ্রেস ডিজাইনার, এসইও মেনেজার, এফিলিয়েট মার্কেটার, কন্টেন্ট রাইটার এবং ইকমার্স মার্কেটার। সে ব্লগিং এবং অন্যকে সাহায্য করার ব্যপারে খুবই আবেগপ্রবণ।
সুবিধাসমূহ:
অসুবিধাসমূহ:

পেপারফ্লাইয়ের টাকা বা পন্য দুটিই মেরে দেয়ার রেকর্ড আছে। এদের সার্ভিস ব্যবেহারের আগে ভেবে নিবেন।

এডিটরের রেটিং:
রিভিউজ জিঙ্গেল
Logo